ওসমানীনগরে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ডকুমেন্টারি তৈরি করছে শিক্ষার্থীরা

 


সিলেটের ওসমানীনগরে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধকে জানি’ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে মহান মুক্তিযুদ্ধের তথ্য ও সাক্ষাতকার ভিত্তিক ডকুমেন্টারি তৈরি করছে উপজেলার প্রতিটি বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে এই কার্যক্রম থেকে শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে সক্ষম হচ্ছে। অন্যদিকে উপস্থাপনা, সাক্ষাতকার গ্রহণ ও ডকুমেন্টারি তৈরির মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজের অভিজ্ঞতা লাভ করছে। বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস শিক্ষার্থীদের জানার জন্য সরকারের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ এলাকার সচেতন মহল।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক উপজেলার ২১টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ্িবভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে তাদের শিক্ষকের সহযোগিতায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে জানতে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধের প্রত্যক্ষদর্শী এবং শহীদ পরিবারের সদস্যদের সাক্ষাতকার গ্রহণ করছে। সরেজমিন পরিদর্শন করছে স্বাধীনতার স্মৃতি বহনকারী বধ্যভূমি ও গণকবর। সাক্ষাতকার গ্রহণ এবং যুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত স্থান পরিদর্শনের তথ্যচিত্র দিয়ে তৈরি করছে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ডকুমেন্টারি।
সরেজমিন গোয়ালাবাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের গিয়ে দেখা যায় বেশ কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে শিক্ষকের দিক নির্দেশনায় দক্ষতার সাথে মুক্তিযোদ্ধা ও যুদ্ধের প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষাতকার গ্রহণ করছে শিক্ষার্থীরা। অত্যন্ত দক্ষতার সাথে কেউ প্রশ্ন করছে, কেউ উত্তর গুলো নোট করছে এবং কেউ চিত্র ধারণ করছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের এমন কার্যক্রম দেখে যে কেউ মুদ্ধ হবে।
এসময় বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী নাছরিন আক্তার ও সামিয়া খানম তৃশা জানায় আমাদের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবুল লেইছ স্যারের তত্ত্ববধানে এবং মোঃ আনোয়ার হোসেন স্যারের সার্বিক দিক নির্দেশনায় সাক্ষাতকার গ্রহণ ও তথ্য সংগ্রহ করে ডকুমেন্টারী তৈরির কাজ সুন্দর ভাবে করতে সক্ষম হচ্ছি। আমরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং আমাদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য জানতে পারছি। এমন কার্যক্রম আমাদের খুব ভাল লাগছে।
সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ আপ্তাব আহমদ বলেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জানার আগ্রহ আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে। অন্যন্ত দক্ষতার সাথে তাড়া সাক্ষাতকার গ্রহণ করতে পারছে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও গোয়ালাবাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবুল লেইছ বলেন, মন্ত্রণালয়ের গৃহিত এই কর্মসূচী বাস্তবায়নের মাধ্যমে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে সঠিক ইতিহাস জানতে সক্ষম হচ্ছে। সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য বার্ষিক পরীক্ষায় ২০ নম্বর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে যা ধারাবাহিক মূল্যায়নের ওপর পরীক্ষার নম্বরের সাথে যোগ করা হবে। সরকারের এই মহতি উদ্যোগকে স্বাগত জানান তিনি।
ওসমানীনগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা স্বপন কুমার চক্রবর্তী বলেন, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক উপজেলার ২১টি বিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধকে জানি’ প্রতিপাদ্য বিষয়টি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এই কর্মসূচী বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীরা আনন্দের সাথে দেশের বঙ্গবন্ধু ও মুক্তযুদ্ধ সম্পর্কে সঠিক ইতিহাস জানতে পারছে। তিনি আরো জানান, শিক্ষার্থীদের তৈরি ডকুমেন্টারি গুলো বিদ্যালয়, উপজেলা, জেলা, বিভাগ ও জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় উপস্থাপন করা হবে।

আরও সংবাদ
error: You are under arrest !!