সুনামগঞ্জে ১২ হাজার শিক্ষার্থীর জন্য ১২৫ আসনের অডিটোরিয়াম

হাজারের কোঠা থেকে শিক্ষার্থীর সংখ্যা সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজে এখন ১২ হাজারে। কিন্তু সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজ অডিটোরিয়ামের কোন উন্নয়ন হয় নি। ১২৫ আসনের অডিটোরিয়ামে ২৫ বছরেরও বেশি সময় ধরেই অনুষ্ঠানাদি হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা জেলার বৃহৎ বিদ্যাপীঠে একটি আধুনিক অডিটোরিয়াম নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন।

জেলার প্রাচীন বিদ্যাপীঠ সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক, ডিগ্রি ছাড়াও ১০ টি বিষয়ে স্নাতক ও ৪ টি বিষয়ে স্নাতকোত্তর পড়ানো হয়। এসব বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠান এই অডিটোরিয়ামে হয়ে থাকে। অডিটোরিয়াম মঞ্চটি যেমন যুগোপযোগী নয় তেমনি অডিটোরিয়ামে শিক্ষার্থীর বসার সংকুলানও হয় না।

শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন অডিটোরিয়ামটি কোন ভাল অনুষ্ঠান করার উপযোগী নয়। ভাল কোন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বা মঞ্চ নাটক করা যায় না এই অডিটোরিয়াম মঞ্চে। এছাড়াও মঞ্চের পাশের সাজসজ্জা’র ঘরটিতে অপ্রয়োজনীয় আসবাবপত্রে ভরপুর। সাউ- সিস্টেম ও আলোর ঘাটতি রয়েছে অডিটোরিয়ামে।

শিক্ষার্থীরা বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের একটি কলেজে কেবল শ্রেণি কার্যক্রম নয় শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশে সাংস্কৃতিক কার্যক্রম পরিচালনা করাও জরুরি। কিন্তু ভালো অডিটোরিয়াম না থাকায় এসব কার্যক্রম পরিচালনায় সমস্যা হচ্ছে।
অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র শেখ আল সাদিক সাব্বির বলেন, ‘অডিটোরিয়ামের ভেতরে বসার পর্যাপ্ত আসন নেই। এ কারণে অনুষ্ঠানে সবাই দর্শক হিসাবেও অংশ নিতে পারে না।। গত ২৮সেপ্টেম্বর কলেজে মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রীসহ সংসদ সদস্যরা অতিথি ছিলেন। অনেকে বাইরে দাড়িয়ে ছিল, বসার স্থান পায় নি। এছাড়া

অডিটোরিয়ামের সিলিং ফ্যানগুলোও পুরাতন হয়ে গেছে। খুব ধীর গতিতে চলে। একটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের উপযোগী নয় অডিটোরিয়ামটি।

একাদশ শ্রেণির মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী সামায়ূন কবির বলেন, ১২ হাজার শিক্ষার্থীর জন্য এই অডিটোরিয়াম যথেষ্ট নয়। কোনো অনুষ্ঠানে সবাই বসতে পারে না। অডিটোরিয়ামটি শিক্ষার্থী ভরপুর হলে অনুষ্ঠান প্রাণবন্ত হতো। বিশৃঙ্খল পরিবেশে অনুষ্ঠান হয় অডিটোরিয়ামে। স্যানিটেশনের অবস্থাও ভালো নয়। কলেজে প্রায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত আছে, কিন্তু ৫০০ শিক্ষার্থীর ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন অডিটোরিয়ামও আমাদের নাই।’

চতুর্থ বর্ষের আরেক শিক্ষার্থী বকুল দাস বলেন, আমাদের কলেজের ৭৫ বছর পূর্তি হতে চলেছে। সময় বাড়ার সাথে সাথে নতুন নতুন ভবন তৈরি হয়েছে। সেই সাথে অডিটোরিয়ামও বড় হবার কথা ছিল। ১৯৮০ সালে যতবড় অডিটোরিয়াম ছিলো ২০১৯ সালেও আয়তনে ও সুবিধায় একই রয়ে গেছে। ৪০ বছর আগে কলেজে শিক্ষার্থীর সংখ্যা আর বর্তমানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা এক নয়। শিক্ষার্থী বেড়েছে কিন্তু অডিটোরিয়ামের আয়তন বাড়ে নি। গত ২৮ সেপ্টেম্বরের অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিকও তাঁর বক্তব্যে বলেছেন ১৯৮৪ সালে এসে কলেজে যে অডিটোরিয়াম দেখেছিলাম, এখনও সেটিই দেখছি। এর উন্নয়ন হওয়া প্রয়োজন।

সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মাজহারুল ইসলাম বলেন, অডিটোরিয়ামের সাজসজ্জা ঘরটি অকেজো পড়ে আছে, কারণ এটি ব্যবহারের প্রয়োজন হয় না। আমরা মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান মহোদয়’এর কাছে একটি একাডেমিক ভবনের দাবি করেছি। একাডেমিক ভবনটি হলে নিচ তলায় একটি আধুনিক অডিটোরিয়াম করা হবে।

আরও সংবাদ
error: You are under arrest !!