আজ সন্ধ্যায় চট্টগ্রামে দুই বাংলার লড়াই

চট্টগ্রামে সন্ধ্যায় দুই বাংলার লড়াই

চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে চট্টগ্রাম আবাহনী ও মোহনবাগান মুখোমুখি হচ্ছে শুক্রবার। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে ‘এ’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে উত্তেজনা থাকবে আকাশ ছোঁয়া। এই লড়াইয়ে অন্য মাত্রা যোগ করছে দুই বাংলার অধীর আগ্রহ। সেমিফাইনাল নিশ্চিতের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের ক্লাব।

প্রথম দুই ম্যাচই জিতে গ্রুপে সুবিধাজনক অবস্থানে আছে চট্টগ্রাম আবাহনী। বাংলাদেশি ক্লাব ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে, সেমিফাইনালে যেতে মোহনবাগানের (৩) বিপক্ষে এক পয়েন্ট যথেষ্ট তাদের। অবশ্য মাঠে নামার আগেই স্বাগতিকদের শেষ চার নিশ্চিত হয়ে যেতে পারে দিনের প্রথম ম্যাচে টিসি স্পোর্টসের বিপক্ষে ইয়াং এলিফ্যান্টস জিততে না পারলে। মোহনবাগানও চাইবে এলিফ্যান্টস যেন কোনও পয়েন্ট না পায়। দুই দলই সমান ৩টি করে পয়েন্ট পেয়েছে। গোল ব্যবধানে অবশ্য এগিয়ে পশ্চিমবঙ্গের ক্লাব (১+)। ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টায়, সরাসরি সম্প্রচার করবে বিটিভি ও বাংলা টিভি।

মোহনবাগানের এই বাঁচা মরার লড়াইয়ে ছাড় দিতে রাজি নয় চট্টগ্রাম আবাহনী। পশ্চিমবঙ্গের ক্লাবের বিপক্ষে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের হয়ে ডাগআউটে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চাইছেন কোচ মারুফুল হক। ২০১৪ সালে ভুটানে কিংস কাপে মোহনবাগানকে ৫-২ গোলে হারায় শেখ জামাল।

মারুফ এবারও সেই সাফল্যের পুনরাবৃত্তিতে আশাবাদী, ‘ওই মোহনবাগানের সঙ্গে এই মোহনবাগানের তেমন কোনও পার্থক্য দেখি না। তবে ৫ বছর আগের মোহনবাগানের ফিটনেস লেভেলটা ভালো ছিল আমার কাছে মনে হয়েছে। তখন ওদের দলে সনি নর্দে ছিল। দুই-তিনজন এশিয়ার ভালো খেলোয়াড় ছিল। তবে আমরা নিজেদের খেলাটাই খেলবো। জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবো।’

এই ম্যাচে দলে পরিবর্তনের আভাস দিয়েছেন আবাহনী কোচ। টিসি ও এলিফ্যান্টসের ম্যাচের ফল দেখে এনিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন মারুফ, ‘পরিস্থিতি একটু পাল্টে গেছে। ইয়াং এলিফ্যান্টস ও টিসি স্পোর্টসের ম্যাচের ওপর নির্ভর করছে অনেক কিছু। ওই ম্যাচের ফলের ওপর ভিত্তি করে আমি সিদ্ধান্ত পাল্টাবো। জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা যেহেতু অনেকদিন ধরেই খেলার মধ্যে আছে, ওই ম্যাচের ওপর নির্ভর করে হয়তো আমি কয়েকজনকে বিশ্রাম দিতে পারি। এছাড়া বেঞ্চে যারা আছে তাদেরও ঝালিয়ে দেখার একটা বিষয় আছে।’

২০১০ বিশ্বকাপে খেলা ঘানার প্রিন্স ট্যাগোর এখনও চট্টগ্রামের মাঠে অভিষেক হয়নি। ফিটনেস সমস্যায় দলে জায়গা হচ্ছে না তার। যদিও কোচ বলেছেন, ‘সে আসলে অনেক পরে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছে। ফিটনেস লেভেলটা ওই পর্যায়ে নেই। তবে একেবারেই যে খেলাবো না, তা এখনই বলা যাচ্ছে না।’

এলিফ্যান্টস পয়েন্ট না পেলে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে মোহনবাগানের বিপক্ষে খেলবে চট্টগ্রাম আবাহনী। তাতে কিন্তু ম্যাচের উত্তেজনা কমে যাওয়ার কথা নয়। কারণ, এটা যে দুই বাংলার লড়াই!

আরও সংবাদ
error: You are under arrest !!