হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান সবার উপাসনালয় পাহারা দেব: হেফাজত


হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান সবার উপাসনালয় পাহারা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম। সংগঠনের নায়েবে আমির ও জমিয়তের মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমী শুক্রবার নারায়ণগঞ্জে আয়োজিত সমাবেশে এ মত ব্যক্ত করেন।

ভোলায় ‘ধর্মীয় অবমাননার’ প্রতিবাদে এবং চারজন নিহতের ঘটনার বিচার দাবিতে নারায়ণগঞ্জে এ সমাবেশ আয়োজন করে হেফাজত।

জু’মার নামাজের পর বৃষ্টি উপেক্ষা করে শহরের ডিআইটিতে কেন্দ্রীয় রেলওয়ে জামে মসজিদে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমির ও জমিয়তের মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতা খতিবে বাঙালখ্যাত জোনায়েদ আল হাবিব।

নারায়ণগঞ্জ জেলা হেফাজতে ইসলামের আমির ও ডিআইটি মসজিদের খতিব আব্দুল আউয়ালের সভাপতিত্বে ও হেফাজতের জেলা সমন্বয়ক ফেরদাউসুর রহমানের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন রফিকুল ইসলাম, আবদুল কাদির, আজিজুল হক, জাকির হোসাইন কাশেমী, মনির হোসাইন কাশেমী, সিরাজুল মামুন, ইসমাইল হোসেন সিরাজী, ওমর ফারুক, শাব্বির হোসেন প্রমুখ।

সমাবেশে নূর হোসাইন কাসেমী ধর্ম অবমাননার জন্য ফাঁসির বিধান রেখে আইন পাস করতে সরকারের প্রতি দাবি জানান।

তিনি বলেন, ‘ভোলার ঘটনার সঠিক বিচার না হয় তাহলে আবারো রাজপথে নামতে আমরা বাধ্য হব। এটি নিয়ে কোনো ছিনিমিনি খেলা খেলতে দেওয়া হবে না। আমরা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান সবার উপাসনালয় পাহারা দেব। কারণ আমরা সবার ধর্মকে সম্মান করি, এটাই আমাদের ধর্মের শিক্ষা’।

জোনায়েদ আল হাবিব বলেন, আমাদের ভাইদের যারা গুলি করে মেরেছে তাদেরও গ্রেপ্তার করতে হবে, শাস্তি দিতে হবে।

নারায়ণগঞ্জ হেফাজতে ইসলামের আমির ও ডিআইটি মসজিদের খতিব আব্দুল আউয়াল বলেন, আমাদের হেয় করতে অনেকে বিভিন্ন উপাসনালয়ে হামলা করতে পারে, তাই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। যেন কোনো ষড়যন্ত্রকারী সফল না হয় আর এ ধরনের ঘটনা দেখলে সঙ্গে সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দিতে হবে।

আরও সংবাদ
error: You are under arrest !!