ভোট বঞ্চিত মানুষ ক্ষিপ্ত, অচিরেই গণবিস্ফোরণ শুরু হবে : রিজভী

ভোট বঞ্চিত মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে আছে এবং অচিরেই গণবিস্ফোরণ হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।
আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর নয়াপল্টনে অবস্থিত বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয়তাবাদী তাঁতী দল, ঢাকা জেলা শাখার এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন,  ‘অবিলম্বে দেশনেত্রীকে মুক্তি দিয়ে সুচিকিৎসার সুযোগ দিন। অন্যথায় তার সকল দায়-দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে। জনগণ সকল অন্যায়ের হিসাব কড়ায়-গন্ডায় বুঝে নিবে। জনগণের ধৈর্য ও সহ্যের বাঁধ ভেঙে গেছে। গত ৩০ ডিসেম্বরের আগের রাতে ভোট ডাকাতির পর সারাদেশের ভোট বঞ্চিত মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে আছে। অচিরেই গণবিস্ফোরণ শুরু হবে।’
রিজভী বলেন, ‘আওয়ামী ভয়াবহ দুঃশাসনের বিরুদ্ধে কেউ যাতে মাথাচাড়া দিতে কিংবা টুঁ শব্দ উচ্চারণ করতে না পারে সেজন্য দেশের মানুষের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী ‘‘গণতন্ত্রের মা’’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা ও সাজানো মামলায় কারারুদ্ধ করে রেখেছে সরকার। জামিনযোগ্য মামলা হওয়া সত্বেও তাকে জামিন দেয়া হচ্ছে না। দেশনেত্রী শারীরিকভাবে ভীষণ অসুস্থ হলেও তার অসুস্থতা নিয়ে বিএসএমএমইউ এর পরিচালক চরম মিথ্যাচার করছেন। তিনি প্রেসব্রিফিংয়ে সরকারের শেখানো কথাই বলেছেন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপির একটি বলিষ্ঠ অঙ্গ সংগঠন হিসেবে জাতীয়তাবাদী তাঁতী দল নানা প্রতিকুল পরিস্থিতি মোকাবেলা করে দেশব্যাপী সংগঠনকে আরও গতিশীল ও শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছে। এজন্য আমি সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।’
ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি ডা. ওেয়ান মো. সালাহউদ্দিন বাবুর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক, তাঁতী দলের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, যুগ্ম আহবায়ক অধ্যক্ষ বাহাউদ্দিন বাহার, কাজী মনির, জাহাঙ্গীর আলম, ফিরোজ কিবরিয়া, রেজাউল করিম রানা, মোস্তফা কামাল এবং সদস্য খন্দকার হেলাল ও জাকির হোসেন প্রমুখ।

আরও সংবাদ
error: You are under arrest !!