শিক্ষা জাতীয়করণ ছাড়া কোন বিকল্প নেই : সিলেটে এনআই খান


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি যাদুঘরের কিউরেটর ও সাবেক শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, সরকারের ভিশন বাস্তবায়নে শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণের কোন বিকল্প নেই। এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। এব্যাপারে সরকারের সদিচ্ছার অভাব নেই। বিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে গতকাল শনিবার সকালে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি সিলেট মহানগরের উদ্যোগে সিলেট জেলা পরিষদ হলরুমে আয়োজিত ‘শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষা জাতীয়করণ’ শীর্ষক আলোচনা সভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এনআই খান সকল শিক্ষককে লেখক হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আমাদের শিক্ষার ফোকাস শুধু চাকুরির জন্য। এটা আমাদের পরিবর্তন করতে হবে এবং আমাদের শিক্ষার্থীদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে হবে। তিনি আরো বলেন, প্রধান শিক্ষকদের জন্য প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট তৈরী করা দরকার একই সাথে শিক্ষকদের বিদেশ ভ্রমণ করে জ্ঞান অর্জনের প্রয়োজন রয়েছে। এতে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন ঘটবে।

বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বাশস) সিলেট মহানগরের সভাপতি আহমদ আলীর সভাপতিত্বে এবং শিক্ষক নেতা জিয়াউর রহমানের স ালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাশিস কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ড. মোঃ ইদ্রিস আলী, কেন্দ্রীয় মহাসচিব ফরিদুল ইসলাম ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ইসরাইল আহমদ। অতিথিরা একযোগে সকল শিক্ষক-কর্মচারীর চাকুরী জাতীয়করণের জোর দাবি জানান।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষক সমিতি সিলেটের সভাপতি মামুন আহমদ, সচিব শমসের আলী, সুনামগঞ্জ জেলার শেখ নজরুল ইসলাম, হবিগঞ্জ জেলার নুরুল আমিন, শিক্ষক নেতা মোঃ আবুল লেইছ, রফিকুল ইসলাম, রশিদ আহমদ, হাসিনা মমতাজ, শামীম আহমদ, সুশিল চন্দ্র নাথ, আবদুল জলিল, আবদুল মুমিন, শামীম আহমদ, জিয়াউর রহমান প্রমূখ।

শিক্ষক নেতারা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বৈষম্যমূলক সমাজ প্রতিষ্ঠার পক্ষে আজীবন লড়ে গেছেন। কিন্তু তার সেই সোনার বাংলায় শিক্ষকরা আজ মারাত্মক বৈষম্যের শিকার। মুজিব বর্ষে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার মুখ থেকে একযোগে সকল শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণের ঘোষণা শোনার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তারা। একই সাথে বিশ^ শিক্ষক দিবস সরকারি ভাবে পালনের দাবিও জানান বক্তারা।

আরও সংবাদ
error: You are under arrest !!