মাস্ক পরার বাধ্যবাধকতা তুলে নিয়েছে স্পেন

বার্সেলোনা, স্পেন। ছবি:: মুবিন খান

দৈনিক আক্রান্ত ও হাসপাতালে রোগীর চাপ কমতে থাকায় মাস্ক পরার বাধ্যবাধকতা তুলে নিয়েছে স্পেন। এ যেন এক নতুন স্বাধীনতা ! প্রায় দেড় বছর পর আজ থেকে বাইরে বের হলে আর প্রয়োজন নেই মাস্ক পরার। মুক্ত বাতাসে নেওয়া যাবে শ্বাস-প্রশ্বাস। টানা এক বছরেরও অধিক সময় (৪০১ দিন) ধরে স্পেনে খোলা পরিবেশে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক থাকার পর বর্তমানে সে নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়া হয়েছে। এখন রাস্তায় মাস্ক ছাড়া চলাচল করা যাবে। তবে খোলা পরিবেশে মাস্ক ব্যবহারের জন্যে নূন্যতম দেড় মিটারের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। এছাড়া খোলা পরিবেশেও মানুষের ভিড় হলে এবং সে ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে না পারলে থাকলে সেখানে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক রাখা হয়েছে।

আর এ কারণে রাস্তায় চলাচলে মুখে ব্যবহার না করলেও মাস্ক সাথে নিয়ে চলতে হবে। কারণ যে কোন সময় এমন পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে, যেখানে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক হয়ে যাবে।
দেশটির মনোবিজ্ঞানী নাতালিয়া ওরতেগা মনে করেন, মাস্ক ব্যবহার সম্পূর্ণ ওঠিয়ে না দেয়া হলেও, দীর্ঘ ১৫ মাস অতিক্রম করা মহামারীর পর এই শিথিলতা মানুষের কিছুটা হলে অবসাদ কমাবে। তিনি বলেন, সামাজিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে মুখাবয়বের ভাব ও অভিব্যক্তি দেখা মানুষের জন্যে গুরুত্বপূর্ণ, যা মাস্ক ব্যবহারের কারণে এতোদিন ঢাকা ছিলো। এখন আমরা কারো পুরো মুখাবয়ব দেখতে পারবো।

২৬ জুন থেকে মাস্ক ব্যবহারের এই শিথিলতা কার্যকর করা হলেও, কয়েক মাস যাবতই বিষয়টি আলোচনার টেবিলে ছিলো। ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলোর তুলনায় মহামারি পরিস্থিতিতে স্পেনের আইনকানুন তূলনামূলকভাবে বেশি কড়াকড়ি ছিলো। আর এই কারণে, দেশটির বিশেষজ্ঞরা মাস্ক ব্যবহারের শিথিলতার বিষয়ে পক্ষে ও বিপক্ষে যুক্তি দেখান। তবে এ ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ভিন্ন যুক্তি দেখিয়েছেন মহামারী বিশেষজ্ঞ ও অভিয়েডো বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি ও দুর্যোগ গবেষণা ইউনিটির প্রধান পেদ্রো আরকোস। তিনি উল্লেখ করেন, যেখানে খোলা পরিবেশে সামাজিক দূরত্ব বজায় ছিলো এমন জায়গায় প্রথম থেকেই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা প্রয়োজনীয় ছিলো না। তিনি আরো বলেন, শুধুমাত্র আবদ্ধ পরিবেশে যেখানে মানুষের ভিড় হয়, এমন স্থানে বাধ্যতামূলক করাটিই যথেষ্ট ছিলো।

তবে বর্তমানে মাস্ক ব্যবহারে এই শিথিলতা আনার বিষয়টি কোভিড১৯ মহামারীতে এক বছরের অধিক সময় ধরে ভোগান্তির পর স্পেনকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে একটি বিশেষ ধাপ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।
উল্লেখ্য, এক সপ্তাহ আগে দেশটির রাষ্ট্রপতি পেদ্রো সানচেসের দেয়া পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ২৬ জুন থেকে এই নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়া হয়েছে। এই ঘোষণার পর স্পেনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্প্যনিশরা বিভিন্নভাবে আনন্দের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন এবং মাস্ক শিথিলতা কার্যকরের পূর্ব রাতে দেশটির বিভিন্ন শহরে মানুষের আনন্দ উল্লাস করতে দেখা যায়।

এশিয়াবিডি/কামরান/মুবিন
আরও সংবাদ
English »