রেমিট্যান্সযোদ্ধার শেষযাত্রা

মাত্র একদিন পরই বাড়ি ফিরবেন। প্রস্তুতিটাও আগেই শেষ করে রেখেছিলেন। বিমান টিকেট, আউট পাস আর সন্তানদের জন্য যথসামান্য উপহার-সবকিছুই হাতে।
অন্যদিকে দেশে, দীর্ঘদিন পর আসছেন প্রিয়জন, অপেক্ষা প্রহর যেন শেষ হয় স্ত্রী, সন্তান, পরিবারের ।
বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) রাত ৯ টায় আকাশপথে বৈরুত থেকে ঢাকায়, এরপর কুমিল্লায় নিজ গ্রাম, নিজ পরিবারের সানিধ্য। না দেশ যাত্রা আর হল না লেবাননপ্রবাসী বাংলাদেশি রেমিট্যান্সযোদ্ধা মাহবুবুর রহমানের। তিনি চলে গেলেন চিরযাত্রায়, না ফেরার দেশে।
বুধবার (১১ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় দুপুর ২ টায় লেবাননে সাঈদা জেলার হেলালিয়া এলাকায় নিজ বাসায় মারা যান তিনি। মাহবুবুর রহমান (৩৮) দীর্ঘদিন ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত ।
তিনি বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলার কাদেরাবাংগা গ্রামের আব্দুল কাদেরের সন্তান তিনি। দেশে তাঁর স্ত্রী, ২ জন মেয়ে রয়েছে।
মাহবুবুর রহমান ৪ বছর আগে জীবিকার তাগিদে হয়েছিলেন লেবানন প্রবাসী । রোজাগার মোটামুটি ভালই হচ্ছিল । কিন্তু ৩ মাস আগে তিনি ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত হলে কোম্পানীর মালিক তাঁকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেন। এর আগে তিনি অবৈধও হয়ে যান।
স্থানীয় প্রবাসী বাংলাদেশিদের সহযোগিতা নিয়ে দেশে যাওয়ার জন্য বৈরুত দূতাবাসে আবেদন করেন। ভিসা তালিকায় নাম আসার পর মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) বৈরুতে বাংলাদেশ দূতাবাসে উপস্থিত হয়ে আউটপাস ও বিমান টিকেট সংগ্রহ করেন।
বৃহষ্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় রাত ৯ টায় এয়ার আরাবিয়া বিমানযোগে দেশে যাবার কথা ছিল। এর আগেই আজ বুধবার তিনি চলে যান না ফেরার দেশে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাঁর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায় ।
এদিকে তাঁর মৃত্যু সংবাদে নিজ এলাকাসহ পরিবারের শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তারা বৈরুত দূতাবাসের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন যেন এই রেমিটেন্সযোদ্ধার মরদেহ দ্রুত দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।

আরও সংবাদ
error: You are under arrest !!